সুজানগরে ছাত্রলীগের এক বছর মেয়াদের কমিটি চলছে ৬ বছর! অসন্তোষ ও ক্ষোভ সুজানগরে ছাত্রলীগের এক বছর মেয়াদের কমিটি চলছে ৬ বছর! অসন্তোষ ও ক্ষোভ – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫৭ অপরাহ্ন
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
চাটমোহর উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দিলেন আতিকুর রহমান আতিক পাবনায় ভোট না করায় চেয়ারম্যানের বাড়িতেই চেয়ারম্যানকে হুমকি দিল আ.লীগ নেতা! ৮ বছর আগে মারা গেছেন, প্রধান আসামি করে ভূমি কর্মকর্তার মামলা! চরতারাপুরে শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামী আমিরুল গ্রেপ্তার সাদুল্লাপুর ইউনিয়নে দৃষ্টিনন্দন ‘গোলঘর’ শুভ উদ্বোধন  পাবনায় দপ্তরীর হাতে প্রাথমিক শিক্ষক লাঞ্চিত পাবনা বিআরটিএ অফিসে দালালদের আখড়া, টাকা ছাড়া ফাইল জমা হয়না! শরীফার গল্প’ নিয়ে যে সিদ্ধান্ত হলো সেন্টমার্টিনে বেড়াতে গিয়ে বিসিএস ক্যাডার হ্যাপী নিখোঁজ সুজানগরে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহিনুজ্জামান শাহীনের উঠান বৈঠক

সুজানগরে ছাত্রলীগের এক বছর মেয়াদের কমিটি চলছে ৬ বছর! অসন্তোষ ও ক্ষোভ

দৈনিক পাবনা ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১০ মাস আগে
  • ৩৭৮ বার পঠিত

পাবনার সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটি এক বছর মেয়াদের জন্য গঠিত হলেও ৬ বছর অতিক্রম করছে। এখন পর্যন্ত পুর্ণাঙ্গ কমিটিও করতে পারেনি। হতাশা, ক্ষোভ ও অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে নেতাকর্মীদের মাঝে। নানা কেলেঙ্কারিতে জড়িত বর্তমান কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি গঠনের দাবি উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুলাই) দিনব্যাপী সুজানগর উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসের ৯ তারিখে তৎকালীন ছাত্রলীগের সভাপতি রুহুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জাহিদুল ইসলাম তমালকে সভাপতি ও তুষার আহম্মেদকে সাধারণ সম্পাদক করে সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের ১ বছরের জন্য কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সংক্ষিপ্ত এ কমিটিকে ৩ মাসের মধ্যে পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনেরও নির্দেশনা দেওয়া হয়। এরপর একে একে ৬ টি বছর অতিবাহিত হলেও পুর্ণাঙ্গ কমিটি উপহার দেওয়া তো দুরের কথা ইউনিয়ন, ওয়ার্ড, স্কুল-কলেজ কমিটিও গঠন করতে পারেনি।

গত বছরের (১১এপ্রিল) ফিরোজ আলী -তাজুল ইসলাম প্যানেলের বিতর্কিত কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। এরপর সেই বছরের ৭ নভেম্বরে মিজানুর রহমান সবুজকে সভাপতি ও রাব্বিউল ইসলাম সিমান্তকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়। বর্তমান কমিটির মেয়াদ প্রায় এক বছর অতিবাহিত হওয়ার দিকে হলেও সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠনের কোন উদ্যোগ নেয়নি।

এতে নতুন নেতৃত্ব যেমন তৈরি হচ্ছে না, তেমনি সাংগঠনিক চেইন অব কমান্ড ভেঙে পড়েছে। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ, ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। এতে একদিকে যেমন কমিটির নেতারা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ছেন, অপরদিকে তৈরি হচ্ছে গ্রুপিং। ফলে বাড়ছে অভ্যন্তরীণ কোন্দল, রাজনীতি ছেড়ে সরে যাচ্ছেন অনেকেই। সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগেরে ভেতরে-বাইরে স্থানীয় প্রভাবশালীদের দৌরাত্ম্যের কারণে নতুন কমিটি হচ্ছে না।

দীর্ঘদিন ধরে কেবল একটি সিন্ডিকেটেরই আধিপত্য। এতে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা হচ্ছেন অবমূল্যায়নের শিকার। দিনের পর দিন একটি সিন্ডিকেটের বেপরোয়া আধিপত্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মাঝে।

বর্তমান কমিটির কতিপয় নেতার বিরুদ্ধে, চাঁদাবাজি, মাদক, ইভটিজিংসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজের অভিযোগ রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের একজন নেতা অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালন করা তো দুরের কথা বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে কোন কর্মসূচি গ্রহণ করেনি। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপি জামায়াতের সরকার বিরোধী আন্দোলনকে প্রতিহত করার জন্যও কোন প্রস্তুতি গ্রহণ করেনি। বিএনপির আন্দোলনের সময় বর্তমান কমিটি ঘর থেকে বের হতে পারবেনা বলে জানান তারা।

এ সময় কথা হয় সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের ত্যাগী একজন কর্মীর সঙ্গে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগ। বর্তমানে সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগ একটি নিষ্ক্রীয় সংগঠনে পরিনত হয়েছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এই অযোগ্য কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন করে কমিটি দিয়ে সংগঠনকে আরও শক্তিশালী সংগঠনে পরিনত করা দরকার । বর্তমান কমিটির কয়েকজন চাঁদাবাজি, মাদক, ইভিটিজিংসহ না কেলেঙ্কারীতে জড়িত।

সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘদিন কমিটির মেয়াদ পার হলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি না করে পুরাতন অযোগ্যদের নেতা বানিয়ে বসিয়ে রাখা হয়েছে। সাংগঠনিক নাম-পরিচয় নেই কারও। এ অবস্থায় অভ্যন্তরীণ কোন্দল বৃদ্ধি পাচ্ছে। কমটি দ্রুত ভেঙে দিতে হবে।

সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির ২ নং সহ-সভাপতি রবিন হোসেন ও সম্রাট বলেন, সুজানগরে ছাত্রলীগের অনেক কর্মীকে অপমানিত ও হামলার শিকার হতে হচ্ছে। যা একজন ছাত্রলীগ কর্মীর কাছে অনেক কষ্টের ব্যাপার। এক বছরের কমিটি ৬ বছর ধরে কোনোভাবেই থাকতে পারে না। যা ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রবিরোধী। এতে ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব তৈরি হচ্ছেনা।

এদিকে কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণের বিষয়ে সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম তমাল কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে ফোন কেটে দেন।

এব্যাপারে পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান সবুজ বলেন, আমরা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করতেছি। অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সম্মেলনের মাধ্যমে সুজানগর উপজেলা ছাত্রলীগে নতুন নেতৃত্ব আসবে বলে আশা প্রকাশ করছি।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park