ভ্যানচালক স্বামীর অনুপ্রেরণায় ছেলের সঙ্গে এসএসসি পাস করলেন স্ত্রী ভ্যানচালক স্বামীর অনুপ্রেরণায় ছেলের সঙ্গে এসএসসি পাস করলেন স্ত্রী – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৩১ পূর্বাহ্ন
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৩১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
কুমারখালীতে ৪০ কেজি ওজনের গাঁজার গাছসহ আটক ১ পাবনায় শিক্ষকদের বরণ ও প্রাথমিক শিক্ষা পদক অনুষ্ঠান দিনে শুনসান নিরবতা, আঁধার নামলেই শুরু হয় সুজানগরে বালু উত্তোলনের মহোৎসব  পাবনায় বই মেলার উদ্বোধন করলেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ মারা গেছেন ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া বিশ্বে অনন্য উদাহরণ : সেনাপ্রধান  পাাবনায় ইন্টার্ন নার্সকে মারধরের প্রতিবাদে তৃতীয়দিনে কর্মবিরতি রূপপুর নিয়ে প্রশ্ন করায় ক্ষেপে গেলেন মন্ত্রী ইয়াফেস, জড়ালেন তর্কে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের নার্সকে মারধরের অভিযোগ দালালের বিরুদ্ধে ‘আমার সঙ্গে আল্লাহ ছাড়া কেউ নেই, এজন্য বিচারও চাইনি!’

ভ্যানচালক স্বামীর অনুপ্রেরণায় ছেলের সঙ্গে এসএসসি পাস করলেন স্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ২ মাস আগে
  • ৩১ বার পঠিত

ছিল অদম্য ইচ্ছেশক্তি। বাধা ছিল শুধু পারিপার্শ্বিকতা। সেই পারিপার্শ্বিকতার মধ্যেই ছেলে মেহেদী হাসানের সঙ্গে চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন মা মঞ্জুয়ারা খাতুন। বেশ কৃতিত্বের সঙ্গে পাসও করেছেন। ছেলে ও মায়ের এক সঙ্গে এমন সাফল্যে পরিবারের মাঝে আনন্দের বন্যা বইছে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) প্রকাশিত ফলাফলে জানা যায়, মঞ্জুয়ারা খাতুন পেয়েছেন জিপিএ ৪.৮৯ এবং ছেলে মেহেদী হাসান পেয়েছেন জিপিএ ৪.৯৩।

জানা গেছে, মা মন্জুয়ারা কারিগরি বোর্ডের অধীনে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ শামীমা জাফর মৎস্য ইনস্টিটিউট থেকে এবং ছেলে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ বিএম কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। তাদের বাড়ি উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে। স্বামী অটোভ্যানচালক আব্দুর রহিম ও এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে তাদের সংসার।

মঞ্জুয়ারা খাতুন বলেন, আমার খুব ইচ্ছে ছিল পড়াশোনা করার। কিন্তু নানা কারণে হয়ে উঠেনি। এর মধ্যেই দুই বছর আগে খানমরিচ টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটে ভর্তি হয়েছিলাম। আর এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলাম। আমার পড়াশোনায় আমার স্বামীও বেশ সহযোগিতা করেছে।

তিনি বলেন, আমার স্বামী অটোভ্যান চালিয়ে আমাদের সংসার ও লেখাপড়ার খরচ জুগিয়েছেন। তার অনুপ্রেরণা আর আমার ইচ্ছাশক্তি মিলেই এই ফলাফল করেছি। এখন উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণের আকাঙ্খা আরও বেড়ে গেল। সুযোগ পেলে আরও পড়াশোনা করতে চাই।

মায়ের সঙ্গে পরীক্ষা দিয়ে পাস করায় উল্লাস প্রকাশ করেন ছেলে মেহেদী হাসান। তিনি বলেন, আমরা অনেক কষ্টের মাঝেও পড়ালেখা চালিয়ে গেছি। আমার মা সংসারের মাঝেও পরীক্ষা দিয়েছেন এবং বেশ ভালো ফলাফল নিয়ে পাসও করেছেন। এজন্য আমি অত্যন্ত খুশি।

মন্জুয়ারার স্বামী আব্দুর রহিম জানান, স্ত্রী ও ছেলে এক সঙ্গে এসএসসি পাস করায় তিনি ভীষণ খুশি। পাসের খবর পেয়েই তিনি সবাইকে মিষ্টি খাইয়েছেন। তার ইচ্ছা ছেলে-মেয়ের সঙ্গে স্ত্রীর পড়াশোনাও চালিয়ে নিয়ে যেতে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park