প্রকৌশলী থানায় গিয়ে বললেন, ‘বাবাকে খু ন করেছি, গ্রেফতার করুন প্রকৌশলী থানায় গিয়ে বললেন, ‘বাবাকে খু ন করেছি, গ্রেফতার করুন – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪২ অপরাহ্ন
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
চাটমোহর উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দিলেন আতিকুর রহমান আতিক পাবনায় ভোট না করায় চেয়ারম্যানের বাড়িতেই চেয়ারম্যানকে হুমকি দিল আ.লীগ নেতা! ৮ বছর আগে মারা গেছেন, প্রধান আসামি করে ভূমি কর্মকর্তার মামলা! চরতারাপুরে শিক্ষককে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামী আমিরুল গ্রেপ্তার সাদুল্লাপুর ইউনিয়নে দৃষ্টিনন্দন ‘গোলঘর’ শুভ উদ্বোধন  পাবনায় দপ্তরীর হাতে প্রাথমিক শিক্ষক লাঞ্চিত পাবনা বিআরটিএ অফিসে দালালদের আখড়া, টাকা ছাড়া ফাইল জমা হয়না! শরীফার গল্প’ নিয়ে যে সিদ্ধান্ত হলো সেন্টমার্টিনে বেড়াতে গিয়ে বিসিএস ক্যাডার হ্যাপী নিখোঁজ সুজানগরে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহিনুজ্জামান শাহীনের উঠান বৈঠক

প্রকৌশলী থানায় গিয়ে বললেন, ‘বাবাকে খু ন করেছি, গ্রেফতার করুন

দৈনিক পাবনা ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১ বছর আগে
  • ১২৫ বার পঠিত

ঠাকুরগাঁও: ‘আমি বাবাকে খু ন করেছি, গ্রেফতার করুন’, থানায় গিয়ে এভাবেই আত্মসমর্পণ করেছেন গোলাম আজম (২৯) নামে এক প্রকৌশলী।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত ৩টার দিকে ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের একুশে মোড় শান্তিনগর এলাকায় নিজ বাড়িতে ছুরিকাঘাতে বাবা ফজলে আলমকে (৫৮) হত্যা করে থানায় গিয়ে একথা বলেন তিনি।

নিহত ফজলে আলম কাঠ ব্যবসায়ী ছিলেন৷ তার ছয় সন্তানের মধ্যে গোলাম আজম চতুর্থ।

ফজলে আলমের ভাতিজা শামসুজ্জামান বলেন, আজম রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি (রুয়েট) থেকে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ালেখা শেষ করে ঢাকায় একটি ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন।

পরে তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় চাকরি ছেড়ে বাড়ি ফিরে আসেন৷ বাড়িতে থেকে পাশের জেলা দিনাজপুরের একটি আইটি কোম্পানিতে কাজ করছিলেন তিনি৷ পরিবারের লোকজন তাকে জোর করে মানসিক রোগের চিকিৎসা করাচ্ছিলেন। এতে পরিবারের লোকজনের ওপর তিনি ক্ষুব্ধ ছিলেন।

গত রাতে পাশাপাশি দুই রুমে বাবা ও ছেলে ঘুমাচ্ছিলেন। আর কেউ বাসায় ছিলেন না। রাত ৩টার দিকে আজম তার বাবার রুমে গিয়ে লাইট জ্বালিয়ে তার মাথায় আঘাত করেন। এরপর ছুরি দিয়ে তার দেহের কয়েক জায়গায় আঘাত করেন আজম। এতে ফজলে আলমের মৃত্যু হলে আজম নিজেই থানায় গিয়ে হত্যার কথা বলেন।
ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন বলেন, বাবাকে খুন করার পর ছেলে নিজেই থানায় চলে আসেন৷ মরদেহ ময়নাতদন্তের ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park