পাবনায় শ্রমিককে অপহরণ করে লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি, গ্রেপ্তার ২ পাবনায় শ্রমিককে অপহরণ করে লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি, গ্রেপ্তার ২ – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

পাবনায় শ্রমিককে অপহরণ করে লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি, গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ৫ মাস আগে
  • ৫১ বার পঠিত

পাবনা শহর থেকে অপহৃত শাহানুর আলী নামের এক শ্রমিককে  চাটমোহর উপজেলা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় অপহরণের সঙ্গে সম্পৃক্ত বিকাশ এজেন্টসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৪ এপ্রিল) সকালে উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের সাহাপুর দিয়ারপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। অপহৃত শ্রমিক শাহানুর সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের রায়শিমুল গ্রামের বাবু খাঁর ছেলে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- চাটমোহর উপজেলার সাহাপুর দিয়ারপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে কুখ্যাত চোর শাহেদ আলী (৬৫) ও বালুদিয়ার গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে বিকাশ এজেন্ট আবুল হাশেম (৩৫)।বিষয়টি নিশ্চিত করে চাটমোহর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, শ্রমিক শাহানুর কাজের সন্ধানে শনিবার (২৩ এপ্রিল) পাবনা শহরে যান। রাত ৮টার দিকে শহরের আতাইকুলা রোড এলাকা থেকে তাকে অপহরণ করে একটি চক্র। শাহানুর বাড়ি না ফেরায় পরিবারের সদস্যরা তার খোঁজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে তাকে অপহরণ করা হয়ে জানিয়ে মুঠোফোনে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। শাহানুরের স্বজনরা বিকাশের মাধ্যমে একটি নম্বরে ৭ হাজার ৫শ টাকা পাঠান এবং পাবনা সদর থানায় এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ করেন। পরে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় পাবনা সদর থানা পুলিশ নিশ্চিত হয় শাহানুরকে দিয়ারপাড়া গ্রামে আটক করে রাখা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ভোরে শাহেদের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শাহানুরকে উদ্ধার করে এবং শাহেদকে গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ বিকাশ এজেন্ট আবুল হাশেমকেও গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পাবনা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত  কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা  হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি এই চক্রটি বিভিন্ন মানুষকে অপহরণ করে মুক্তিপন দাবি করে। মুক্তিপণ না দিলে তাদেরকে হত্যা করে । উদ্ধারকৃত শ্রমিককে পাবনা সদর থানায় হস্তান্তর করলে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত  দুজনকে বিভিন্নভাবে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বিষয়টি েএখনো তদন্তাধীন।আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। এ ব্যাপারে অন্য কেউ জড়িত থাকলে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে এবং প্রয়োজনীয়  ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park