পাবনায় ভিজিএফের চালে ছাত্রলীগ নেতার চাঁদাবাজি! পাবনায় ভিজিএফের চালে ছাত্রলীগ নেতার চাঁদাবাজি! – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

পাবনায় ভিজিএফের চালে ছাত্রলীগ নেতার চাঁদাবাজি!

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ৩ মাস আগে
  • ৩৭ বার পঠিত

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বারদের কাছ থেকে চাঁদা হিসেবে ভিজিএফ কর্মসূচির আঠারো মন চাল দাবি করার অভিযোগে এক ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতাকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।
 শুক্রবার (৮ জুলাই) বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান আদালত পরিচালনা করে খানমরিচ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাককে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার ঈদুল আযহা উপলক্ষে উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের দরিদ্র মানুষের মধ্যে ১০ কেজি করে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ করা হচ্ছিল। এদিন দুপুরে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক সহ ১০-১২ জন ছাত্রলীগ নেতা পরিষদ কার্যালয়ে গিয়ে চাল বিতরণ কার্যক্রম বন্ধ করে দেন। এ সময় ওই ছাত্রলীগ নেতা প্রত্যেক মেম্বারের কাছ থেকে দুই মন করে চাউল দাবি করেন। এ সময় চাউল দাবির কারণ জানতে চাইলে ছাত্রলীগ নেতা পিকনিকের খরচের কথা বলেন। কিন্তু চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা চাল দিতে অস্বীকার করেন। এতে ভিজিএফ এর চাল কম দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে ওই ছাত্র নেতারা পরিষদ কার্যালয়ে হাঙ্গামা শুরু করেন। এক পর্যায়ে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাককে তিন হাজার টাকা জরিমানা করেন। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন চাঁদাবাজি করবে না মর্মে ওই ছাত্রলীগ নেতাদের কাছ থেকে লিখিত মুচলেকা নেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।
অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে আব্দুর রাজ্জাকের মুঠোফোনে একাধিক বার কল করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েও কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।
তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ছাত্রনেতা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বাররা ও চেয়ারম্যান চাল কম দিচ্ছিল। তাই চাল বিতরণ বন্ধ করে দিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়। তাই চেয়ারম্যান মেম্বাররা ছাত্রলীগ নেতাদেরকে ফাঁসিয়েছে।
উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুল হাসান বিপ্লব বলেন, বিষয়টি শুনেছি। প্রকৃত ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। দোষী সাব্যস্ত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
খানমরিচ ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ার খান মিঠু বলেন, পিকনিকের কথা বলে মেম্বারদের কাছ থেকে দুই মন করে চাল দাবি করে ওই ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক সহ কয়েকজন। বিষয়টি প্রশাসনকে জানালে মোবাইল কোর্টে তাকে জরিমানা করে মুচলেকা নেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। এ সময় তিনি চাল কম দেয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান বলেন, কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে চাল বিতরণ করা হয়। এতে কোন প্রকার অনিয়ম হয়নি। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে চাঁদা দাবির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ায় ওই ছাত্রলীগ নেতাকে জরিমানা করে ও মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park