পাবনায় এনজিও কিস্তির চাপে গৃহবধুর আত্মহত্যা পাবনায় এনজিও কিস্তির চাপে গৃহবধুর আত্মহত্যা – দৈনিক পাবনা
  1. admin@dainikpabna.com : admin :
  2. rakibhasnatpabna@gmail.com : Rakib Hasnat : Rakib Hasnat
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
শিমুল বিশ্বাসের মুক্তির দাবিতে পাবনায় বিএনপির বিশাল বিক্ষোভ মিছিল  শিক্ষার্থীদের নিকট সংগ্রামের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরা শিক্ষকদের দায়িত্ব- ডেপুটি স্পীকার জাতিকে এগিয়ে নেয়ার পথে ইতিহাস, ঐতিহ‌্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময় জরুরী- ডেপুটি স্পীকার আগামী রোববার পাবনার খাজানগরে মহাপবিত্র ইছালে ছাওয়াব মাহফিল!  কাজিরহাটকে যুক্ত করে পদ্মা-যমুনার মোহনায় ওয়াই আকৃতির সেতু বা টানেলের প্রস্তাব রূপপুরের পণ্যবোঝাই রুশ জাহাজ চীনের পথে পাবনার সেই ঘটনার আসামিরা ঘুরছে প্রকাশ্যে, বাদীরা আতঙ্কে উপজেলা শিক্ষা অফিসার, এ,কে,এম, রেজাউল হক আর নেই ঐতিহ্যবাহী চড়াডাঙ্গা দরবার শরীফে ইছালে ছাওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত দুর্নীতি ও রাজনৈতিক প্রভাবমুক্তের দাবিতে দুবলিয়া স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন 

পাবনায় এনজিও কিস্তির চাপে গৃহবধুর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধি, সাঁথিয়া
  • আপডেট সময় : ৯ মাস আগে
  • ১০১ বার পঠিত

পাবনার সাঁথিয়ায় কিস্তির চাপ সইতে না পেরে স্বামীর সাথে অভিমান করে ইতি খাতুন (২৯) নামে এক গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ক্ষেতুপাড়া ইউনিয়নের হাসানপুর গ্রামে। ইতি ওই গ্রামের ইকবালের মেয়ে ও কাঠ মিস্ত্রি আজিজুল হকের স্ত্রী। তার ৬বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

থানা ও পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, প্রায় ৮বছর আগে হাসান পুর গ্রামের ইকবালের মেয়ে ইতি খাতুনের বিয়ে হয় একই গ্রামের কাঠ মিস্ত্রি আজিজুল হকের সাথে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে তার পরিারে অভাব অনটন দেখা দেয়। এক পর্যায়ে ব্যুরো বাংলাদেশ নামে একটি এনজিওর বনগ্রাম শাখা থেকে প্রায় ৪০ হাজার টাকা সে ঋণ তুলে দেয় স্বামীকে। কিন্তু কিস্তি দেয়ার দিন এলেই স্বামীর সাথে ইতির ঝগড়া লেগে যায়। মাঝে মাঝেই কিস্তির সমস্য হলেই তার বাপ ভাইয়ের কাছ থেকে টাকা নিয়ে এসে কিস্তি দিত ইতি।

ঘটনার দিন মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে এনজিও ব্যুরো বাংলাদেশ বনগ্রাম শাখা থেকে কিস্তি নিতে -আসে ইতির বাড়িতে। এ সময় কিস্তির টাকা নিয়ে স্বামীর সাথে ঝগড়া হয়। এর পর সে টাকার জন্য পাশেই অন্য পাড়াতে তার বাবা মার বাড়ি সেখানে যায়। সেখানে কারও নিকট টাকা চাইতে সাহস না পেয়ে ফিরে এসে সবার অগোচরে নিজ ঘরের শয়ন কক্ষে আড়ার সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে।

ইতির ভাই হাবিল জানান, আমরা দুইভাই বোন জমজ। ও আমার ছোট। ৩ ভাইয়ের একটি মাত্র বোন। আমি দোকানদারী করি চিনাখড়া বাজারে। ওই দিন সকালে নাকি আমাদের বাড়িতে আসছিল। কিন্তু কাউকে কিছু বলে চলে গেছে । ও টাকা চাইলেই পারতো। আমাকে বললেই পারতো। ওকে তো আমরা চাইলে টাকা দেই সাধ্য মতো। কিন্তু আজ কেন যে বলল না এই বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আব্দুর রউফ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার সন্ধা রাতে লাশ উদ্ধার করে থানায় রাখা হয়েছে। বুধবার সকালে ময়না তদন্ত শেষে তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ব্যাপারে ইতির ভাই হাবিব বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ দৈনিক পাবনা
Themes Customized By Shakil IT Park